সংবাদ শিরোনামঃ
কোপা আমেরিকার কোয়ার্টার ফাইনালে আর্জেন্টিনা! ৮৫% হাসপাতালে নেই লাইফ সাপোর্টের ব্যবস্থা! ফায়ার সার্ভিস শুধু জলন্ত বাড়িঘরের আগুন নিভানোর জন্যে যায়না।খোকা মিয়া ইসরাইল গেলে বা সম্পর্ক রাখলে জেল ও জরি’মানার বিধান রেখে কুয়েতের সংসদে আইন পাস!! চলুন এবার নিজ নিজ সামর্থ অনুযায়ী দানের “শাে অফে”ভরিয়ে দেই ফেসবুকের নিউজ ফিড। আল আকসা মসজিদে রমজানে জুম’আ-তে প্রায় ৭০ হাজার মুসল্লীর জামাত নােটিশ এয়ারপাের্ট কন্ট্রাক্ট! ইমিগ্রেশন কন্ট্রাক্ট ! এয়ারপাের্ট সাপাের্ট! বাস ভাড়া বাড়ানো হয়েছে ৬০ শতাংশ! মহাসড়ক অবরোধ করেন বিক্ষুব্ধ যাত্রীরা। ঢাকা ও দিল্লির জন্য আগামী ২৫ বছর খুব গুরুত্বপূর্ণ এবার মুখ খুললেন মাশরাফি বিন মর্তুজা
ধোনি ও সুরেশ রায়নার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিদায়

ধোনি ও সুরেশ রায়নার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিদায়

ধোনি ও সুরেশ রায়না

ক্রিকেটের তিনটি ফর্ম্যাটেই শতরান আছে সুরেশ রায়নার। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট জীবনে ১৮টি টেস্ট, ২২৬টি ওডিআই ও ৭৮টি টি-২০ খেলেছেন সুরেশ রায়না।  ধোনি ও সুরেশ রায়না আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে একই সাথে বিদাই নিলেন ।

এমএস ধোনির পথে সাথে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানালেন সুরেশ রায়নাও। একসময় ওয়ানডে ক্রিকেটে ভারতের মিডল অর্ডারের প্রধান ভরসা সুরেশ রায়না ইনস্টাগ্রামে এই ঘোষণা করেন। তিনি এমএস ধোনির কথা উল্লেখ করে পোস্টে লেখেন, “তোমার সঙ্গে খেলা জীবনের অন্যতম স্মরণীয় মুহূর্ত” । তাই পরের পথিক হলাম। আমি অবসরপ্রাপ্ত এটা ধরে নেওয়া যায়। ধন্যবাদ। জয় হিন্দ।” ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের মত, এমএস ধোনি পরবর্তী ভারতীয় ক্রিকেটে সুরেশ রায়নার সুযোগ পাওয়া একেবারেই অসম্ভব। তাই সুযোগের সদ্ব্যবহার করে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সুরেশ রায়না। ধোনি ও সুরেশ রায়না এর বিদায় ভারতীয় ক্রিকেটে ব্যাপক প্রভাব পড়তে পারে বলে আশংকা করছেন অনেকে ।

এদিকে এমএস ধোনির অবসর , তাঁর অধিনায়কত্বে একটা টি-২০ বিশ্বকাপ, একটা পঞ্চাশ ওভারের বিশ্বকাপ এবং ২০১৩-এর চ্যাম্পিয়নস ট্রফি দেরাজে তোলে ভারতীয় দল। আপাতত আইপিএল-২০২০’র প্রস্তুতি শিবিরে যোগ দিতে চেন্নাইতে রয়েছেন এম এস ধোনি।

এমএস ধোনি ৯৮টি টি-২০ ম্যাচে তাঁর সংগ্রহ ১৬১৭ রান। তার দুটি অর্ধশতক-সহ গড় রান ৩৭.৬০। গত বছর জানুয়ারিতে বিশ্ব ক্রিকেটের হিসেবে অন্যতম সাফল্যেে মালিক এমএস ধোনি। পঞ্চম ভারতীয় এবং দ্বাদশ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার হিসেবে ওডিআইতে দশ হাজার রানের মালিক হয়েছিলেন তিনি। ১২ জানুয়ারি সিডনিতে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ম্যাচে এই সাফল্য অর্জন করেছিলেন তিনি। এই সাফল্যের পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের অন্যতম সেরা শচীন তেণ্ডুলকর, রাহুল দ্রাবিড়, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, কুমার সাঙ্গাকারা, ব্রায়ান লারা ও সনৎ জয়সূর্যের তালিকাভুক্ত হয়েছিলেন মাহি। ২০১১-এর বিশ্বকাপ ফাইনালে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে তাঁর ছয় কখনো ভুলবেনা ক্রিকেট প্রেমীরা ।

এম এস ধোনির অধিনায়কত্বে একটা টি-২০ বিশ্বকাপ, একটা পঞ্চাশ ওভারের বিশ্বকাপ এবং ২০১৩-এর চ্যাম্পিয়নস ট্রফি দেরাজে তোলে ভারতীয় দল। আপাতত আইপিএল-২০২০’র প্রস্তুতি শিবিরে যোগ দিতে চেন্নাইতে রয়েছেন মাহি। ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে চলতি বছরের আইপিএল। খেলা হবে সংযুক্ত আরব আমিরাতে ।

আরও পড়ুনঃ ব্যস্তব ঘটনা সবাইকে সচেতন হতে হবে তা না হলে বিপদে পরবেন।

আপনার মতামত জানান

শেয়ার করুনঃ

খুজুন




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

© ২০২০ | নিউজ ইবিডি ২৪ কর্তৃক সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত 
Design BY NewsTheme