পাকা পেঁপে হল সবচেয়ে পুষ্টিকর ফলগুলির মধ্যে একটি। কাঁচা পেঁপেও নানা গুণে ভরপুর।

পাকা পেঁপে হল সবচেয়ে পুষ্টিকর ফলগুলির মধ্যে একটি। কাঁচা পেঁপেও নানা গুণে ভরপুর।

পাকা পেঁপে হল সবচেয়ে পুষ্টিকর ফলগুলির মধ্যে একটি। কাঁচা পেঁপেও নানা গুণে ভরপুর।

পাকা পেঁপে হল সবচেয়ে পুষ্টিকর ফলগুলির মধ্যে একটি। কাঁচা পেঁপেও নানা গুণে ভরপুর। অন্তঃসত্ত্বাকে পেঁপে খাওয়াচ্ছেন? কী হতে পারে এর ফলে পাকা পেঁপেহল সবচেয়ে পুষ্টিকর ফলগুলির মধ্যে একটি। কাঁচা পেঁপেও নানা গুণে ভরপুর। পাওয়াও সহজ। প্রায় সব বাজারেই ওঠে। অনেকের বাড়িতেও পেঁপে গাছ থাকে। পেঁপে খেলে নানা রােগ থেকে মুক্তি মেলে। কর্মক্ষমতা বাড়ে। তাই যে কোনও সময়ে পেঁপে খাওয়ার প্রবণতাও বেশি রয়ছ ঘরে ঘরে।অন্তঃসত্ত্বাকে পুষ্টিকর খাবার।

খাওয়ানাে জরুরি বটে। তাই রকমারি ফল-সজি দেওয়া হয়।কিন্তু এ সময়ে পেঁপে খাওয়া নািপদ নয়। অন্তঃসত্ত্বাকে পেঁপে দিলে উল্টেসমস্যা বাড়ার আশঙ্কা থাকে। সে কথা হয়তাে অনেকেরই জানা নেই।কেন অন্তঃসত্ত্বাকে পেঁপে দেবেন না? ১) কাঁচা পেঁপেতে ল্যাটেক্সযুক্ত পদার্থ রয়েছে। ভা গর্ভাশয় সঙ্কোচনের কারণ হতে পারে।

আরও পড়ুনঃ বছরে দুটি বাছুর জন্ম দেওয়ার প্রযুক্তিতে সাফল্যে বাংলাদেশ !

গর্ভাবস্থায় কাঁচা বা আংশিক ভাবে পাকা পেঁপে খেলেও তাই সমস্যা হতে পারে।২) পেঁপেতে উপস্থিত পেপসিন এবং পাপাইন ভ্রণের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। পেঁপে খেলে দ্রুণ নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কাও থাকে।৩) পাপাইনের প্রভাবে প্লাসেন্টায় রক্তক্ষরণ হওয়ার আশঙ্কাও থাকে। ৪) পেঁপেতে থাকে দুটি এনজাইম।

সে দুটির প্রভাবে ভ্রণের বৃদ্ধি বন্ধ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। এ সব কারণেই অন্তঃসত্ত্বাদের কয়েক মাস পেঁপে না খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়ে থাকে। পেঁপের অনেক গুণ। বহু ধরনের অসুস্থভাতেও চিকিৎসকরা রােগীকে পেঁপে খাওয়ানাের পরামর্শ দেন। কিন্তু পেঁপে খাওয়ার

বিপদও আছে। কোন কোন ক্ষেত্রে পেঁপে খাওয়া বিপজ্জনক? শিশুদের নয়:এক বছরের কম বয়সের শিশুদের পেপে খাওয়ানাে উচিত নয়। এতে তাদের হজমের সমস্যা হতে পারে। • শ্বাসকষ্টের সমস্যায় অনেকের ক্ষেত্রে পেঁপে শ্বাসকষ্টের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। কারণ এর একটি উপাদান কারও কারও শরীরে অ্যালার্জির সৃষ্টি করে।

তাই যাঁরা শ্বাসকষ্টের সমস্যায় ভােগেন, তাঁদের পেঁপে এড়িয়ে চলা উচিত। ডায়াবিটিসের সমস্যায়: যাঁরা এই সমস্যায় ভােগেন, তাঁদের পেঁপে এড়িয়ে চলা উচিত। কারণ এতে রক্তে শর্করার মাত্রার হঠাৎ পরিবর্তন হতে পারে। • কোষ্ঠকাঠিন্য থাকলে; যাঁদের এই সমস্যা আছে, তাঁদেরও পেঁপে এড়িয়ে চলা উচিত। কারণ বেশি পেঁপে খেলে পেটে জলের পরিমাণ কমে যায়। তাতে এই সমস্যা বাড়ে।

আপনার মতামত জানান

শেয়ার করুনঃ

খুজুন




সর্বাধিক পঠিত

© ২০২০ | নিউজ ইবিডি ২৪ কর্তৃক সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত 
Design BY NewsTheme